চৌহালীর সম্ভূদিয়া স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র শাহাদাতকে বাঁচাতে এগিয়ে আসুন - amarkhobor24.com

শিরোনাম

Home Top Ad


Friday, June 19, 2020

চৌহালীর সম্ভূদিয়া স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র শাহাদাতকে বাঁচাতে এগিয়ে আসুন

চৌহালী উপজেলার পয়লা গ্রামের মো. আব্দুল হামিদ মোল্লার ছেলে শাহাদাত হোসেন। সম্ভূদিয়া বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১৯৯৭ সালে কৃতিত্বের সাথে এসএসসি পাশ করেন। শাহাদাত ঢাকার সাভারের একটি বেসরকারি স্কুলে শিক্ষকতা করে আসছিলেন।  
২০১৩ সালে হঠাৎ করে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। এরপর থেকে তাঁর রোগ বাড়তে থাকে। দেশে চিকিৎসা নেয়ার বাইরে ১৫-১৬ বার ভারতে গিয়েও চিকিৎসা নিয়েছেন তিনি। একসময় ডাক্তার জানান, শাহাদাতের দুইটি কিডনিই বিকল হয়ে গেছে। এটাকে চিকিৎসা বিজ্ঞানে বলা হয় ক্রনিক রেনাল ফেইলর। তাকে বাঁচিয়ে রাখতে এখন প্রতি সপ্তাহে অন্তত দুইবার ডায়ালাইসিস করাতে হচ্ছে। ডাক্তার জানিয়েছেন, তার কমপক্ষে একটি কিডনি প্রতিস্থাপন করাতে হবে। এটাকে বলা হয় কিডনি ট্রান্সপ্লান্টেশন, তা না করা হলে এভাবে তাঁকে আর বেশিদিন বাঁচানো যাবে না। 

 দীর্ঘ ৮ বছর ধরে বাংলাদেশ ও ভারতে চিকিৎসা ও নিয়মিত ডায়ালাইসিস করে শাহাদাত হোসেনের পরিবার প্রচন্ড অভাবে পতিত হয়েছে। এমতাবস্থায় একটু স্বস্তির খবর হলো, শাহাদাতের মা সন্তানের জন্য নিজের একটি কিডনি দান করতে রাজি হয়েছেন। একজন মা তার সন্তানের জন্য এতোটা ত্যাগ স্বীকার করছেন! কিন্তু অসুবিধার বিষয়টি হলো, কিডনি প্রতিস্থাপনের অপারেশনটি সম্পন্ন করতেই ৫ থেকে ৬ লক্ষ টাকার প্রয়োজন।


শাহাদাতের জন্য কিডনিও প্রস্তুত; শুধু টাকার জন্য আটকে আছে অপারেশন। সমাজের বিত্তশালী ও হৃদয়বান ব্যক্তিরা সাধ্যমতো আর্থিক সহায়তার মাধ্যমে এগিয়ে আসলেই আবার সুস্থ হয়ে উঠবেন শাহাদাত হোসেন। ৯ বছরের ছোট্ট একটি মেয়ে ফিরে পাবে তার প্রিয় বাবাকে। হাসি ফিরবে একটি পরিবারে। একটি জীবন বাঁচাতে এবং একটি পরিবারে হাসি ফোটাতে আপনিও সাধ্যমতো সহযোগিতা করুন।

মোঃ শাহাদাৎ হোসেন 
মোবাইল ঃ  0194352384

No comments:

Post a Comment

Pages