মোল্লারা আসলেই খারাপ! || মতামত || কে এম হুমায়ুন কবির ||amarkhobor24.com - amarkhobor24.com

শিরোনাম

Home Top Ad


Tuesday, June 16, 2020

মোল্লারা আসলেই খারাপ! || মতামত || কে এম হুমায়ুন কবির ||amarkhobor24.com

মোল্লা,মুন্সি সমাজে প্রচলিত জাহেল মানুষ কর্তৃক একটি কটুক্তির নাম। যদিও মোল্লা, মুন্সির বিস্তর সংখ্যা ও ইতিহাস আছে। সম্মান ও মর্যাদার দুটি নাম হলো মোল্লা,মুন্সি। কিন্তু প্রচলিত জাহিলি সমাজ ব্যবস্থায় আলেমদের হেয় করার লক্ষ্যে শব্দ দুটি ব্যবহার করে থাকে। সমাজে যে যাই করুক সব দোষারোপ নিয়ে মোল্লার কাঁধে চাপানো হয়। আর সাথে একটি ফ্রি গালিতো থাকছেই ‘সালার মোল্লারাই খারাপ’। মসজিদ কমিটি টাকা মেরে খায় মোল্লা তার প্রতিবাদ করলে বলে ‘ মোল্লারা আসলেই খারাপ,নিন্ম মানসিকতার’। ছেলে-মেয়েরা অবৈধ সম্পর্কে মেতে উঠলে যদি মোল্লা প্রতিবাদ করে তবে বলা হয় ‘ ছিঃ মোল্লারা এত খারাপ, ফ্রি মাউন্ড বলতে কিছু বুঝে না, গেঁয়ো’। গোটা সমাজ ব্যবস্থায় যখন জাহিলিয়াতে ভরপুর তখন এর প্রতিবাদ করলে বলা হয় ‘সালা মোল্লাদের জ্বালায় আর বাঁচিনা,আসলে মোল্লারা অনেক খারাপ’।
মোল্লা কারা? মোল্লা আরবী ও ফার্সী ভাষার শব্দ। শব্দটি কোরআনে উল্লেখিত আরবী শব্দ মাওলা এর সংক্ষিপ্ত রূপ। যার অর্থ রক্ষক, কর্তা, নেতা বা অভিভাবক। উইকিপিডিয়া বলা হয়েছে, Mawlana is a title, mostly in central Asia and in the Indian subcontinent, preceding the name of respected muslim religious leaders, in particular graduates of religious institutions. . মোট কথা, যারা আল্লাহ ও তার রাসুলের নির্দেশিত পথে চলে এবং চলার চেষ্টা করে তারাই মোল্লা।

মোল্লারা কেন খারাপ? একটু মোল্লার রাজ্যে থেকে ঘুরে আসি এবং জেনে নেই তারা কেন এত খারাপ? মোল্লা বেকার থাকলে বলে-‘মোল্লা হয়ে কি লাভ চাকুরি পাওয়া যায় না’ আবার যদি চাকুরি পেয়ে যায় তখন বলে- ‘মোল্লারা অবসর থাকতে পারে না,শয়তানে কামড়ায়’। শারীরিকভাবে যদি মোল্লা চিকন হয়ে তখন বলে- ‘মোল্লা হলে এমনেই না খেয়ে মরতে হবে’ আবার কেহ যদি মোটা হয়ে যায় তখন আবার বলে- ‘ মানুষের বাড়ি বাড়ি খেয়ে শরীরটা বানিয়েছে, মোল্লার জন্যই চালের দাম বাড়ে’। কোন মোল্লা যদি জুব্বা পরে তাহলে বলে- ‘এজন্যই কাপড়ের দাম বেশি আর যদি শর্ট পাঞ্জাবী পরে তখন আবার বলে টেডি মোল্লা’। কেহ যদি সুন্নাতি তরিকায় বাবরি চুল রাখে তখন বলে- ‘ কিপ্টা. টাকা খরচ হবে এজন্য চুল কাঁটেনা’ আবার যদি একেবারে ছোট ছোট রাখে তখন বলে- ‘ দেখ মোল্লার কান্ড, তিনমাসের চুল একেবারে কাঁটিয়েছে টাকা বাঁচানোর জন্য’ আর যদি হলক করে তখন বলে- ‘ সারছে দুই টাহায় কাম শেষ’। মোল্লা ওয়াজ নসিহত করলে বলে-‘ খালি জ্ঞান দেয়, এত জ্ঞান দেয়া লাগবে না ,আমরা আপনার থেকে ভালো বুঝি বহুত ওয়াজ শুনছি খালি পেটের ধান্ধা, আর যদি চুপচাপ থাকে তখন বলে- ‘ হুম ভাব বেশি, আরে কিছু না কইলে কেমনে হবে,পেট চলবো কেমনে?’। এরকম হাজারো দোষ মোল্লার কাঁধে চাপানো হয়। মোট কথা, যত দোষ নন্দ ঘোষ। মোল্লা যাই করুক না কেন তাতে কোন না কোন দোষ থাকবেই।
কিন্তু পৃথিবীতে বড় বড় সন্ত্রাস,খুনি,ধর্ষক,দুর্নীতিবাজ,চোর-ডাকাত,চাঁদাবাজ এর মধ্যে কয়জন মোল্লা দেখাতে পারবেন? পারবেন না। যে জঙ্গির দোষারোপ বার বার মোল্লাদের উপর দেয়া হয়, কারা আসলে জঙ্গি তা বার বার প্রমাণিত হয়ে গেছে। সুতরাং মোল্লাদের আর জঙ্গি বলার সুযোগ নেই বরং কিছু কিছু জঙ্গি মাঝে মাঝে মোল্লার বেশ ধরে জঙ্গিবাদ করে।
মোল্লা ও ইসলাম নিয়ে যত কটুক্তি করা হবে ততই ভালো। কারণ ইসলামের অবস্থা যত খারাপ হবে ইসলামের জন্য ততই ভালো। রাত যত গভীর হবে সূর্য তত নিকটে আসবে। আমরা আশাবাদি এ জাহিলি সমাজ ব্যবস্থার অধঃপতন হয়ে সৃষ্টি হবে আরেকটি স্বর্ন যুগের।

তাহলে মোল্লারা করেটা কি? যে মোল্লাদের খারাপ জানেন সে মোল্লারা অল্প বেতনে চাকুরি করে নিরবে নিভৃতে পরিবার,সমাজ,দেশ ও মানবতার কল্যাণ করে যাচ্ছে। যে মোল্লাদের সারা বছর গালি দিয়ে যাচ্ছেন সে মোল্লারাই আপনার জন্মে কানে আজান দিয়েছে, যে মোল্লাদের এত এত কটুক্তি করছেন সে মোল্লারাই আপনার মরণে দাফন-কাফন করছে। যে মোল্লাদের নিয়ে টিটকারি করছেন সে মোল্লারাই আপনার বিয়ে পড়াচ্ছে এবং আপনার অসুস্থতায় প্রাণ খুলে দোয়া করছে, অশ্রু বিসর্জন দিচ্ছে।
মোল্লারা আসলেই খারাপ! যখন করোনা মহামারিতে মানুষ মানুষ থেকে পালাচ্ছে ঠিক সে সময়ে মানুষের দ্বারে দ্বারে ত্রাণ নিয়ে ছুটে যাচ্ছে এই মোল্লারাই।

মোল্লারা আসলেই খারাপ! করোনা পরিস্থিতিতে যখন সবাই ইয়া নাফসি ইয়া নাফসি নিয়ে ব্যস্ত ঠিক সে সময়ে নিজের কথা চিন্তা না করে জনসেবা আর মানবতার ফেরি করে যাচ্ছে সেই মোল্লারাই।

মোল্লারা আসলেই খারাপ! যখন কৃষক করোনা মহামারিতে টাকার অভাবে ধান কেঁটে ঘরে নিতে পারছে না ঠিক সে সময়ে কৃষকের ধান কেটে, মুড়িয়ে,বস্তা মাথায় নিয়ে বাড়িতে পৌঁছে দিচ্ছে এই মোল্লারাই।

মোল্লারা আসলেই খারাপ! যখন করোনায় মৃত বাবার লাশ সন্তান রেখে পালাচ্ছে, ছেলের লাশ বাবা রেখে পালাচ্ছে, মা ছেলে থেকে-ছেলে মা থেকে, ভাই বোন থেকে -বোন ভাই থেকে,স্বামী স্ত্রী থেকে আর স্ত্রী স্বামী থেকে পালাচ্ছে ঠিক সে সময়ে জীবনের মায়া ত্যাগ করে , নিজের পরিবারের কথা চিন্তা না করে এবং মরণের ঝুঁকি নিয়ে করোনার মৃত লাশ দাফন-কাফন সহ আনুসাঙ্গিক কাজ সম্পন্ন করছে এই মোল্লারাই।

তারপরেও সবাই উচ্চ আওয়াজে সমস্বরে বলুন আসলে এই মোল্লারাই খারাপ!!!
তাইতো কবি বলেছেন-
তবে কেন এতো মোল্লা বিরোধী মোল্লার প্রতি ঘৃনা?
তার চেয়ে দেখ কিছুটা মোল্লা নিজে হতে পারো কিনা?

No comments:

Post a Comment

Pages