রূপসায় করোনা সন্দেহ নিয়ে এক নারীর মৃত্যু, লকডাউন ২০টি ঘর - amarkhobor24.com

শিরোনাম

Home Top Ad


Tuesday, April 7, 2020

রূপসায় করোনা সন্দেহ নিয়ে এক নারীর মৃত্যু, লকডাউন ২০টি ঘর

এফ এম বুরহান,রূপসা উপজেলা প্রতিনিধিঃ খুলনা জেলার রূপসা উপজেলার ৩নং নৈহাটি ইউনিয়ন এর দেবীপুর এলাকার, মোঃ ইসমাইল হোসেন এর স্ত্রী মোসাঃ সালেহা বেগম.(৬০) করোনা ভাইরাস সন্দেহ নিয়ে, রহস্য জনক ভাবে মৃত্যু বরণ করেন। আতংকে তার নাতী রাসেল পাইক।
দেবীপুরনিবাসী মোসাঃ সালেহা বেগম দীর্ঘদিন ধরে ঢাকায় তাঁর ছেলে মোঃ মামুন পাইকের বাড়ীতে থাকেন তের(১৪) দিন পূর্বে ২৬ মার্চ তারিখ,  তিনি ঢাকা থেকে তার নাতী মোঃ রাসেল পাইক.(২২) এর সাথে গ্রামের বাড়ীতে আসেন। 
সেসময় তিনি জ্বর, সর্দি, কাশীতে আক্রান্ত ছিলেন, ঢাকা থেকে বাড়ী ফিরে এই তথ্য গোপন করে তার পরিবার, কিন্তু রূপসা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সহ গ্রাম্য ডাক্তার এর কাছ থেকে সেবা নিয়ে আসছিলেন সালেহা বেগম। এরপর তিনি খুব অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে গত ০৬ মার্চ তিনি অসুস্থ হয়ে গেলে বেলা ৩ টার সময় তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মেডিসিন বিভাগের ৩নং ইউনিটে ভর্তি করা হয়। সেখানেই গতকাল রাত ১:৩০ এর দিকে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত বলে ঘোষণা দেন।
এ দিকে এ ঘটনা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পড়লে রূপসাবাসী আতংক বিরাজ করেন, এবং ঘটনা কে কেন্দ্র করে রূপসা উপজেলা প্রশাসন জনাবাঃ নাছরিন আক্তার, পুলিশ, সাংবাদিক সহ মিডিয়া নজর দেন ঐ এলাকায়। 
পরে সকাল গতকাল  ১০:৩০ টার সময় রূপসা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে ডাক্তার আসেন এবং মৃতের নমুনা সংগ্রহ করে নিয়ে যায়।
কিন্তু খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপিতাল এর সিভিল সার্জন ডাঃ সুজিত আহমদ জানান, সালেহা বেগম দীর্ঘদিন ধরে ডায়াবেটিস সহ কিডনি রোগে আক্রান্ত ছিলেন, তাঁর দুইটি কিডনিই ড্যামেজ হয়ে পড়ার কারনে তাহার মূত্যু হয়েছে। ডাঃ সুজিত আহমাদ. (খুমেক) এর সিভিল সার্জন আরো জানান, সালেহা বেগম এর শরীরে কোন প্রকার নোভেল করোনা ভাইরাস সনাক্ত করা যায়নি, তার ভিতরে করোনার কোন লক্ষণ ছিলোনা। 
এরপর সালেহা বেগম এর নাতী মোঃ রাসেল পাইক.(২২) কে করোনা ভাইরাস পরিক্ষা করেন তাঁর শরীরে ও কোন প্রকার করোনার লক্ষণ পাওয়া যায়নি বলে জানানো হয়েছে।
তবে রাসেল পাইকের ও জ্বর, কাশী, সর্দি রয়েছে। এ ঘটনা কে কেন্দ্র করে রূপসা উপজেলা প্রশাসন জনাবাঃ নাছরিন আক্তার বলেন, মূত্যুঃ সালেহা বেগম এর পরিবার এখন থেকে ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টায়নে রাখার কথা জানানো হয়েছে। এবং ঐ এলাকার় বিশটি পরিবারকে লকডাউনে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন আতংকিত হওয়ার কিছু নেই , কিন্তু সবাইকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছেন।

No comments:

Post a Comment

Pages