হাফিজুর রহমানকে নিয়ে নোংরা প্রচারণা বিবেকবান মানুষের কাজ নয় ||amarkhobor24.com - amarkhobor24.com

শিরোনাম

Home Top Ad


Tuesday, March 3, 2020

হাফিজুর রহমানকে নিয়ে নোংরা প্রচারণা বিবেকবান মানুষের কাজ নয় ||amarkhobor24.com

মাওলানা হাফিজুর রহমান সিদ্দিকী একজন সাদাসিদে মানুষ।যার বয়ানে লাখ যুবকের মাঝে পরিবর্তন আসছে।যারা পূর্বে বেদাতি আলেমদের বয়ান শুনত তারা এখন হাফিজুর রহমান এর বয়ান শুনে।দাড়ি ছাড়া যুবকরা দাড়ি রাখছে,বেনামাজিরা নামাজি হচ্ছে।তা স্বর্থেও যারা উনার বিরোধীতা করেন তারা হয়তো হিংসা নয়তো মূর্খতা জাহির করতে বিরোধীতা করেন।সাম্প্রতিক সময়ে জামায়াত শিবিরের ভাইগন সবচেয়ে বেশি তাঁর বিরোধিতা করতে দেখা যাচ্ছে।তাদের দাবি হলো মাওলানা হাফিজুর রহমান এর বিরোধীতার কারণে মিজানুর রহমান আজহারী দেশ ত্যাগে বাধ্য হয়েছেন।এই নিয়ে জামায়াত সমর্থিত এক বক্তা হাফিজুর রহমানকে জুতা পেটা করার হুমকি দেয়।এমনকি পবিত্র কোরআনের উপরে জুতা তুলতেও দ্বিধা করেননি।কেন এত দ্বন্ধ বয়ানের মাঠে? এর দ্বারা সাধারণ মানুষ বিভক্ত ও হতাশ হচ্ছে.।মানুষের ভুল হতেই পারে তাই বলে তাঁকে অস্যভদের মত গালিগালাজ করা শোভনীয় নয়।মিজানুর রহমান ভুল মাসায়ালা র সমালোচনা করেছে হক্কানি আলেম সমাজ।কিন্তু তিনি সেই ভুল মাসায়ালা থেকে নিজেকে শোধরে নেয়নি।অপরদিকে হাফিজুর রহমান কোন ভুল করলে সাথে সাথে ভুল শোধরে নিয়ে জনতা এবং আল্লাহর কাছে ক্ষমা চান।এটা ভালো মানুষের গুন।
ভুল করা যতটা না অপরাধ এর চেয়ে বড় অপরাধ ভুলের উপর এস্তেকামাত বা অটল থাকা।আমি কারো অন্ধ ভক্ত নই।আগামীকাল যদি আমার দলের প্রধানও ভুল করে আমি তাঁর বিরোধীতা করব।এটাই আমাদের রাজনৈতিক দর্শন ও ধর্মীয় অাকিদা। মিজানুর রহমান সাহেব এত বিতর্কের জন্ম দিলেন তা স্বর্থেও তাঁর পক্ষাবলম্বন করে হক্কানি অালেমদের গালিগালাজ করা ব্যক্তিপূজার নামান্তর। মিজানুর রহমান গেলেন মালেশিয়া পড়ালেখা করতে কিন্তু তার ভক্তবৃন্দ গালি দিচ্ছে হাফিজুর রহমান সাহেব কে।এটা অন্ধ ভক্তদের নষ্ট উল্লাস বলা চলে।বিরোধীতা বা সমালোচনার একটি মাপকাটি রয়েছে।বাংলাদেশের সংবিধান মোতাবেক সমালোচনা স্বীকৃত বিষয়।তাই বলে নির্লজ্জের ন্যায় উলঙ্গ সমালোচনা ব্যক্তিত্বহীনতা ও মনুষ্যত্বহীনতার প্রমাণ দেয়।মাওলানা হাফিজু রহমান বাংলাদেশের জন্য রহমত স্বরুপ।আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাঅাতের মুখপাত্র হিসেবে অাখ্যাতি করতে তেমনটা ভুল হবে বলে মনে করছিনা।

যারা মিজানুর রহমানের ভক্ত হয়ে মাওলানা হাফিজুর রহমানকে নির্লজ্জের ন্যায় গালিগালাজ করছে তারা মিজানুর রহমান আজহারীর বয়ান শুনে যে বেয়াদব হয়েছে সেটাই প্রমাণ করে।একজন হক্কানি অালেমের বয়ান শুনে এবং তার ভক্ত হয়ে যে  অন্য অারেকজন আলেমকে গালি দেয় সে ভক্ত নয় জাতিকে বিভক্ত করতে কাজ করছে।যারা মিজানুর রহমান আর হাজিজুর রহমান এর পার্সোনাল বিষয় নিয়ে ফেইসবুকে নোংরা প্রচারণা করেন তারা আকৃতিতে মানুষ হলেও ওরা চতুষ্পদী জানোয়ারের ভূমিকা পালন করছে।কারো ব্যক্তিগত বা পারিবারিক বিষয় নিয়ে এডিট করে ট্টল করা বিবেবকবান মানুষের কাজ হতে পারে না।আলেমদের সমালোচনা বা ভুল শোধরানোর কাজ একান্ত আলেম সমাজের। ভক্তে ভক্তে বিভক্ত হয়ে নোংরামিতে মেতে উঠা সভ্য সমাজের কাছে অাশা করা যায়না। মাওলানা হাফিজুর রহমানের বয়ানের কারণে হাজারো বেনামাজি তওবা করে নামাজি হচ্ছে।সুতরাং আমরা তার বিরোধীতার নামে ইসলামের বিরোধীতা করছিনা নাতো? হাফিজুর রহমান যতদিন হকের পথে থাকবে ততদিন সম্মান করব। যদি কখনো হকের পথ থেকে বিচ্যুত হয়ে যায় তখন সাথে সাথে তাঁকর প্রত্যাখান করব। এই মানসিকতা আমাদের  থাকলেও জামায়াত শিবিরের ভাইদের মাঝে নেই।জামায়াতের প্রতিষ্টাতা আবুল অালা মওদুদী সাহেবের ভুল আকিদা তারা নীরবে মেনে নিয়েছে।যারা তাদের আমিরের ভুল অাকিদার উপর অটল তারা মিজানুর রহমান আজহারীর ভুল মাসায়ালা মেনে নিতে অসুবিধে কোথায়?  আর এটাই হলো ব্যক্তিপূজা ও দলান্ধতার পরিচয়।আসুন বিতর্কে না জড়িয়ে সঠিক পথ অনুসরণ করি।মওদুদী সাহেবের আকিদা বিশ্বাস ইসলামের সাথে সাথে সাংঘর্ষিক।জামায়াত শিবিরের তরুণ শিক্ষিত প্রজন্ম এই ভুল থেকে বেরিয়ে আসুন।

লেখকঃ নুর আহমদ সিদ্দিকী

No comments:

Post a Comment

Pages