মোদীর বাংলাদেশ সফর নিয়ে সরকারের চাওয়ার বিপরীতে মুসলীম তাওহীদি জনতার হুংকার ||amarkhobor24 - amarkhobor24.com

শিরোনাম

Home Top Ad


Saturday, March 7, 2020

মোদীর বাংলাদেশ সফর নিয়ে সরকারের চাওয়ার বিপরীতে মুসলীম তাওহীদি জনতার হুংকার ||amarkhobor24

বর্তমান প্রেক্ষাপটে তালেবান ইস্যুতে মুসলমানরা একটা অসাধারন অনুপ্রেরনায় উজ্জীবিত হবার আকর্ষনে আকর্ষিত।আর সেই প্রভাব বাংলাদেশের রাজপথে সোচ্চার।

সবচেয়ে লক্ষনীয় একটি বিষয় দেখেছে পুরো বাংলাদেশ সহ পুরো বিশ্ববাসী বলা যায় আর তা হচ্ছে বাংলাদেশের মধ্যে ইসলামী আদর্শের সঠিক ধারায় অগ্রগামী রাজনৈতিক দল ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর অভাবনীয় সম্ভাবনাময়ী বিক্ষোভ,সমাবেশ কিংবা প্রতিবাদের উপস্থাপনা ও আয়োজনগুলো।

বিশ্বের যে দেশেই মুসলীমদের উপর অত্যাচার,নিপীড়ন, হত্যাযজ্ঞ চলে সেই ইস্যুতেই তারা সবার আগে বাংলাদেশের রাজপথে বিশাল জনসমাবেশের সমাগম ঘটিয়ে তাদের প্রতিবাদ,বিক্ষোভ সমাবেশ এর জানান দেয়।তাছাড়া যেহেতু বাংলাদেশের ইতিহাসে সঠিক ইসলামী চর্চাধারার রাজনীতিতে সোচ্চার ও বিপ্লব কায়েমের সেরা ইসলামী রাজনৈতিক দল হিসেবে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের অবস্থান শীর্ষে তাই দেশের সরকারী বা বেসরকারী উল্লেখযোগ্য অনৈতিক ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে শক্ত অবস্থান এই সংগঠনটির।

আরো একটি উল্লেখযোগ্য দিক আছে ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ নামক সংগঠনের আর সেটা হচ্ছে এই সংগঠনের চেয়ারপার্সন এদেশের লক্ষ কোটি মুসলমানদের আধ্যাত্মিক রাহবার অর্থাৎ ইসলামী ব্যাক্তিত্ব।যার হাতে হাত রেখে অসংখ্য খারাপ চরিত্রের মানুষ দ্বীনদার ও আল্লাহওয়ালা হয়েছেন।এই সংগঠনের দায়িত্বশীল উর্ধতন পর্যায়ের নেতারা কিন্তু আদর্শিক ইসলাম ও আদর্শিক মুসলমানীয় চরিত্রের অধিকারী।সে হিসেবে কোটি কোটি মানুষের স্বপ্নের কোনো জাল বুনে এই সংগঠন একদিন এদেশে ইসলামী শাসন ও রাষ্ট্র কায়েম করবেই ইনশাআল্লাহ। 

যেহেতু এই সংগঠনটির সক্রিয় কার্যক্রম ইতিমধ্যেই ভারতের দৃষ্টিগোচর হয়েই গেছে সেহেতু স্বাভাবিকভাবেই ভারতের চক্ষুশূলে পরিণত হতেই পারে।অবাক হবার কিছু নাই।তাই ঠান্ডা মাথায় এই সংগঠনটিকে নিষ্ক্রিয় করার পরিকল্পনা চলছে ভারত সরকার ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ সরকারের।আগেই বলেছি অন্যায় শাসনের মাধ্যমে দখল করা প্রতিটি দেশই এখন থেকেই সচেতন হতে চায় এই লক্ষ্যে যেনো তাদের দেশে আফগানিস্থানের মতো তালেবান বীর মুজাহীদের ন্যায় যোদ্ধারা তৈরি হবার সুযোগ না পায়!

নরেন্দ্র মোদী এদেশে আসবেই তবে সে আসাটা আসতে হবে একটা বিশাল প্রতিরোধের পাহাড় ডিঙ্গিয়ে যা পাড়ি দিতে গিয়ে যদি বিফল হয় তাহলে বাংলার তাওহীদি মুসলমানদের আওয়াজ ও হুংকার আরেকবার দেখে নেবার সুযোগ হবে বিশ্ববাসীর আর যদি সফল হয় তাহলে হয়তো এদেশের মধ্যে স্বল্প দৈর্ঘের মুক্তিযুদ্ধের উত্থান হতে পারে।যার নেতৃত্বের অগ্রভাগে থাকবে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ইনশাআল্লাহ।।

No comments:

Post a Comment

Pages