বাস ভাড়া বৃদ্ধির প্রতিবাদে চাটখিলে নির্বাহী অফিসার বরাবর ‍শিক্ষার্থীদের স্মারকলিপি প্রদান - amarkhobor24.com

শিরোনাম

Home Top Ad


Thursday, February 27, 2020

বাস ভাড়া বৃদ্ধির প্রতিবাদে চাটখিলে নির্বাহী অফিসার বরাবর ‍শিক্ষার্থীদের স্মারকলিপি প্রদান

বিশেষ প্রতিনিধিঃ
রামগঞ্জ-সোনাপুর রুটে বাসের লাগামহীন ভাড়া বৃদ্ধির প্রতিবাদে ও শিক্ষার্থীদের অর্ধেক ভাড়া বাস্তবায়নের দাবিতে চাটখিলে নির্বাহী অফিসার বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে  সাধারন শিক্ষার্থী ও অরাজনৈতিক, সামাজিক, ছাত্রকল্যানমূলক সংগঠন চাটখিল ব্লু ফোরাম (সি.বি.এফ) এর যৌথ  উদ্যোগে।
 
২৭ ফেব্রুয়ারি; রোজঃ বৃহষ্পতিবার দুপুর ১২ ঘটিকায় চাটখিল উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে এই স্মারকলিপি জমা দেন চাটখিল কলেজ ও নোয়াখালী সরকারি কলেজের স্নাতক অধ্যায়নরত বিভিন্ন শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীরা। অরাজনৈতিক, সামাজিক ও ছাত্রকল্যানমূলক সংগঠন চাটখিল ব্লু ফোরাম (সি.বি.এফ) এর উদ্যোগে স্মারকলিপি প্রধান করার সময় ‍শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন দাবির প্রেক্ষিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ দিদারুল আলম প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহনের আশ্বাস দেয়।

স্মারকলিপি গ্রহণ করে উপজেলা  নির্বাহী অফিসার  মোঃ দিদারুল আলম বলেন, আমি ‍শিক্ষার্থীদের এই যৌক্তিক দাবির সাথে একমত। ভাড়া কমানো ও হাফ ভাড়া বাস্তবায়ন সহ বিভিন্ন দাবি নিয়ে আমি স্থানীয় সাংসদ, থানার ওসি এবং বাস মালিক শ্রমিক সমিতি সহ সংশ্লিষ্ট সকলের সাথে বৈঠক করে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা অতি দ্রুত গ্রহণ করবো। এসময় তিনি স্মারকলিপি জমা দিতে আসা চাটখিল ব্লু ফোরাম (সি.বি.এফ) এর সদস্যের সাথে সামাজিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।
 চাটখিল উপজেলার শিক্ষার্থীদের প্রায় ৬৫ভাগ শিক্ষার্থী নোয়াখালী সরকারি কলেজে পড়ালেখা করে। শিক্ষার্থীরা চাটখিল হতে জেলা শহর মাইজদীতে অবস্থিত নোয়াখালী সরকারি কলেজে প্রতিদিন গনপরিবহন অর্থাৎ (বাসে) যতায়াত করে। শিক্ষার্থী সহ অন্যান্য শ্রেণি-পেশার হাজারো মানুষের সহজ-সুবিধাজনক যাতায়াতের জন্য রয়েছে একমাত্র ‘জননী বাস সার্ভিস’। যার ফলে শিক্ষার্থীসহ সাধারন মানুষ এই ‘জননী বাস’ কর্তৃপক্ষের নিকট অসহায় বলা চলে। বাসে নারী হেনস্থা, ‪শিক্ষার্থীদের সাথে অসদাচরন, অযৌক্তিক ভাবে ভাড়া বৃদ্ধি, মানহীন সেবা প্রদান সহ আরো বিভিন্ন আভিযোগ রয়েছে ‘জননী বাস সার্ভিস’ এর বিরুদ্ধে।

সম্প্রতি, সামান্য বহিরাবরণ পরিবর্তন করে ‘জননী বাস সার্ভিস’ এর নাম রাখা হয় জননী প্লাস। চাটখিল থেকে মাইজদী পূর্বের ভাড়া ছিলো ৪০-৪৫ টাকা যার বর্তমান ভাড়া ৬০ টাকা। দেখা যায়, বিনা কারনে অযৌক্তিকভাবে ভাড়া বাড়ানোয় নোয়াখালী সরকারি কলেজে অধ্যয়নরত বিভিন্ন শিক্ষাবর্ষের ২০% শিক্ষার্থী কলেজে নিয়মিত যেতে পারছে না । এই জননী প্লাসে আলাদা কোনো সুযোগ- সুবিধা নেই,তাই ভাড়া বাড়ানো অযৌক্তিক বলে মনে করছেন অনেকেই।

৪৫ টাকার ভাড়া ৬০ ! 
যার পরিপেক্ষিতে 
হাজারো শিক্ষার্থী বিপাকে, শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি ২০% কম।

সাম্প্রতিক রামগঞ্জ, চাটখিল টু মাইজদী, সোনাপুরের একমাত্র বাস সার্ভিস জননী কে সামান্য বহিরাবরণ পরিবর্তন করে নাম রাখা হয় জননী প্লাস।যদিও বাস ও ইন্জিন আগের টাই। নেই লুকিং গ্লাস। বাসের ভিতরে অপরিচ্ছন্ন অবস্থা সর্বধা বিরাজমান।
বাসের ভিতরে নেই পর্যন্ত পরিমান লাইট ও ফ্যান।

সবকিছু পূর্বের ন্যায় থাকা সত্বেও বাস মালিক সমিতি নতুন কিছু নিয়মও করেছে, যেমনঃ- 
১/সর্বনিম্ন ভাড়া ১০ টাকা যেখানে সিএনজি ভাড়া ৫ টাকা, 
২/বাস সংখ্যা না বাড়িয়েই সিটের সংখ্যানুপাতিক যাত্রী নেয়া,যার ফলে অনেক যাত্রী ও শিক্ষার্থী সময়মত বাস ও সিট না পেয়ে ক্লাস হারাতে বাধ্য হয়।
৩/আগে স্টুডেন্ট পরিচয় দিলে ৪৫ টাকার ভাড়া ৪০ টাকা রাখলেও এখন স্টুডেন্টদের জন্য কোন ছাড় নেই। 

এ রামগঞ্জ- সোনাপুর রুটে  নোয়াখালী কলেজ, চৌমুহনী কলেজ ও সোনাইমুড়ী কলেজ, চাটখিল কলেজ, জয়াগ কলেজ, ভীমপুর টেকনিক্যাল কলেজ সহ অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হাজারো শিক্ষার্থীকে প্রতিদিন আসা যাওয়া করতে হয়,কিন্তু হঠ্যাৎ এমন ৪০-৫০ টাকা (স্থানভেদে ভিন্নতা) বেড়ে যাওয়ায় তাদের জন্য কষ্টকর হয়ে দাঁড়িয়েছে।
সাম্পতিক সময়ে করা জরিপে দেখা যায়,শিক্ষার্থীরা ২০% ক্লাস করা কমিয়ে দিয়েছে। 
এ অবস্থা পরিত্রাণে মাননীয় জেলা প্রশাসক তন্ময় দাস স্যার ও স্থানীয় সংসদ সদস্যদের হস্তক্ষেপ কামনা করি।

No comments:

Post a Comment

Pages