সংবাদ প্রকাশে চায়ের দোকানের শ্রমিক থেকে জাবি শিক্ষার্থীর স্বপ্ন পুরন - amarkhobor24.com

শিরোনাম

Home Top Ad


Tuesday, February 11, 2020

সংবাদ প্রকাশে চায়ের দোকানের শ্রমিক থেকে জাবি শিক্ষার্থীর স্বপ্ন পুরন

নিজস্ব প্রতিবেদক:

“দৈনিক আগামীর সংবাদ”অনলাইন পোর্টালের সম্পাদক সাংবাদিক আব্দুস সালাম রুবেলের  সহযোগীতায় চায়ের দোকানের কর্মচারী শাকিল এখন (জাবি) জাহাঙ্গীরনগর  বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র।
ভূমিহীন পিতা মমিনুল ইসলামের একমাত্র ছেলে শাকিল। ছোট বেলা থেকেই লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার ভেলাবাড়ী গ্রামের মেধাবী ছাত্র ভুমিহীন পিতা মমিনুল ইসলামের ছেলে আদিতমারী স্টোরপাড়া গ্রামের নানা বাড়ি আব্দুস সাত্তারের কাছে থেকেই চায়ের দোকানের কর্মচারীর কাজ করছেন। চায়ের দোকানের কর্মচারীর  হয়েও এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় সাফল্য অর্জন করে শাকিল। এইসএসসি পরীক্ষায় সাফল্যর বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি যুদ্ধে অংশগ্রহণ করে হাজী দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৭২তম এবং জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ২৮৩৩তম মেধাক্রমে উত্তীর্ণ হন। উত্তীর্ণ হয়েও টাকার অভাবে যখন ভর্তি হতে পারছে না শ্রমিক শাকিল তখন নানা আব্দুস সত্তারের কাছে বিষয়টি জানান। জাবিতে ভর্তি ফি ৮ হাজার টাকাসহ অানুসঙ্গিক মিলে ২০ হাজার টাকা প্রয়োজন। তাই নাতির ইচ্ছা পুরন করতে জাবি’র ভর্তির টাকা যোগাতে বিভিন্ন এনজিওতে ঋন নিতে ছুটছেন নানা আব্দুস সাত্তার। সঞ্চয় ছাড়া কোন এনজিও ঋন না দেয়ায় হতাশ তিনি।  দৈনিক আগামীর সময় "  অনলাইন নিউজ পোর্টালের লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধি 
পরিমল সাহার সাথে কথা হয় শাকিলের।  পরিমল সাহা গত ৯ জানুয়ারী জাবিতে ভর্তি অনিশ্চিত শাকিলের’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে  দৈনিক “আগামীর সংবাদ”  নিউজ পোর্টালে। এরপর অনেকেই তাকে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেন। জাবির প্রো-ভিসি, জাবির বাংলা বিভাগের সাবেক শিক্ষক, দক্ষিণ কোরিয়ার প্রবাসীসহ বিভিন্ন সংগঠন ও বিত্তবান ব্যক্তি বিকাশে ও ডাচ-বাংলা ব্যাংকের মাধ্যেমে তাকে অর্থ সহায়তা দেন।
এর পরই পত্রিকার সম্পাদক তথা সাংবাদিক আব্দুস সালাম রুবেলের সাথে যোগাযোগ করে সাহায্যের টাকা নিয়ে গত সোমবার (১০ ফেব্রুয়ারি) সকালে জাবিতে ভর্তির জন্য বাড়ি ত্যাগ করেন শাকিল রানা। বাড়ি থেকে পৌছে সাংবাদিক আব্দুস সালাম রুবেলের বাসায় আসে । আজ ১১ জানুয়ারী মঙ্গলবার সকালে ” দৈনিক আগামীর সংবাদ”এর সম্পাদক নিজেই শাকিলকে নিয়ে জাবিতে যান। সেখান শাকিলকে ভর্তিসহ সকল সহযোগিতা করেন তিনি। আজ শাকিল জাবির শিক্ষার্থী, তিনি আজ “দৈনিক আগামীর সংবাদ”কে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন সেইসাথে যারা তাকে সহযোগিতা করেছে ধন্যবাদ জানান এবং সামনের দিনগুলোতে তার পাশে থাকার আহ্বান জানান। শাকিল সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন। শাকিল বর্তমান জাবিতে রাষ্ট্রবিজ্ঞান  বিভাগের শিক্ষার্থী। 

এ বিষয় শাকিলে কাছে তার লেখা পড়া শেষে কি হতে চান জানতে চাইলে, দৈনিক আগামীর সংবাদ ” কে তিনি বলেন,আমার ইচ্ছা আমি প্রশাসক ক্যাডারের পরীক্ষা দিয়ে উত্তীর্ন হওয়ার মাধ্যমে দেশের সেবা করতে চাই। আমাদের উপজেলার নির্বাহী  স্যার খুব ভালো ছিলো। তিনি আমাদের সাথে এসে খেলা করতেন। ইউনো  স্যার আমার আইডল  ছিল। আমি ওনার মত হতে চাই।সকলেই আমার জন্য  দোয়া করবেন।

এ বিষয় " দৈনিক আগামীর সময় "  অনলাইন নিউজ পোর্টালের সম্পাদক সাংবাদিক আব্দুস সালাম রুবেলের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, আমার পত্রিকার লালমনিহাট প্রতিনিধির পাঠানো তথ্যের মাধ্যমে শাকিলের বিষয় জানতে পারি। আমি শাকিলকে জাবিতে ভর্তির জন্য  সংবাদ প্রকাশ করে ব্যাপক সারা পাই। অনেকেই ভর্তির জন্য সাহয্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন তাই আমি শাকিলের সাথে যোগাযোগ করি এবং তাকে ঢাকায় আসতি বলি। গতকাল সে ঢাকায় এসে আমার সাথে যোগাযোগ করলে আমি তাকে নিয়ে আজ জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়ে তার ভর্তি কাজ সম্পন্ন করি। আমাদের দেশে প্রত্যন্ত গ্রাম অঞ্চলে এরকম শাকিল অনেক রয়েছে যারা অর্থের অভাবে উচ্চ শিক্ষার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। “দৈনিক আগামীর সংবাদ ” এর সম্পাদক শাকিলের পাশে থাকার আশ্বাস দেন। তিনি শাকিলের জন্য সবার কাছে দোয়া চাওয়ার মাধ্যমে
গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ করে  বলতে চাই, দেশের প্রত্যেকটি উপজেলায় উপজেলা প্রশাসনের মাধ্যমে মেধাবী ছাত্র/ছাত্রীদের খুজে তাদেরকে উচ্চ শিক্ষায় অংশগ্রহনের সুযোগ করে দেওয়ার।  সেই সাথে সরকারের পাশাপাশি দেশের বিত্তবানদেরকে গরীব শিক্ষার্থীদের পাশে দাড়ানোর আহবান জানান।  তিনি আরও বলেন সাভার পৌর আওয়ামীলীগের কার্যকরী সদস ও সাভার পৌর সভার ১ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিল প্রার্থী রমজান আহম্মেদ শাকিলের জন্য মঙ্গলবার বার সাহায্যর হাত বাড়িয়ে দিয়ে বলেন শাকিলের পাশে সবসময় থাকবেন।  আরও জানা যায় মঙ্গলবার  কোরিয়া প্রবাসী নাম না বলার শর্তে শাকিলের জন্য অর্থ সাহায্য করে।

No comments:

Post a Comment

Pages