আজ নায়ক মান্নার ১২ তম মৃত্যুবার্ষিকী ||amarkhobor24 - amarkhobor24.com

শিরোনাম

Home Top Ad


Sunday, February 16, 2020

আজ নায়ক মান্নার ১২ তম মৃত্যুবার্ষিকী ||amarkhobor24

অভিনয়টাকেই নিজের সবকিছু মনে করতেন। যতটা সময় নিজেকে চলচ্চিত্রের সঙ্গে যুক্ত রেখেছিলেন সারাক্ষণ শুধু ইন্ডাস্ট্রির ভালো করার চিন্তাভাবনা করতেন, চলচ্চিত্রটাকে হৃদয়ে ধারণ করতেন। বলছি আসলাম তালুকদার ওরফে চিত্রনায়ক মান্নার কথা। যিনি বিভিন্ন চরিত্রে নিজেকে দর্শকদের কাছে আকর্ষণীয় করে তুলেছিলেন। অভিনয়ের সঙ্গে মিশে যেতেন যতক্ষণ কাজ করতেন।

আজ এই নায়কের ১২তম মৃত্যুবার্ষিকী। ২০০৮ সালের এই দিনে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করেন দাপুটে এই অভিনেতা।

তার অভনয় দর্শকমনে অন্যরকম দোলা দিত। সহজ, সরল, দাপুটে কিংবা হিংস্র সব চরিত্রেই নিজের অভিনয়ের মুন্সিয়ানা দেখিয়েছেন। যার কারণে আজও দর্শক তাকে মনে রেখেছেন। তার মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে এফডিসির শিল্পী সমিতিতে কোরআন খতম ও বিকেলে মিলাদের আয়োজন করা হয়েছে বলে জানান সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান।

জীবদ্দশায় অনেক সুপারহিট চলচ্চিত্র উপহার দিয়েছেন মান্না। অভিনয় করেছেন প্রায় সাড়ে তিনশ ছবিতে। তার অভিনীত উল্লেখযোগ্য সিনেমা হচ্ছে- ‘সিপাহী’, ‘যন্ত্রণা’, ‘অমর’, ‘পাগলী’, ‘দাঙ্গা’, ‘ত্রাস’, ‘জনতার বাদশা’, ‘লাল বাদশা’, ‘আম্মাজান’, ‘দেশ দরদী’, ‘অন্ধ আইন’, ‘স্বামী-স্ত্রীর যুদ্ধ’, ‘অবুঝ শিশু’, ‘মায়ের মর্যাদা’, ‘মা বাবার স্বপ্ন’, ‘হৃদয় থেকে পাওয়া’ ইত্যাদি।

১৯৬৪ সালে টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার এলেঙ্গায় জন্ম নেওয়া মান্না বিএফডিসি আয়োজিত নতুন মুখের সন্ধানে কার্যক্রমের মাধ্যমে ১৯৮৪ সালে চলচ্চিত্রে আত্মপ্রকাশ করেন। তার প্রথম অভিনীত সিনেমা ‘তওবা’ (১৯৮৪)।

সূত্রঃ বাংলাদেশ জার্নাল

No comments:

Post a Comment

Pages