অবশেষে বিভাগীয় প্রকৌশলী ও ডিসির নির্দেশে ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের উপরেই কাজ শুরু - amarkhobor24.com

শিরোনাম

Home Top Ad


Sunday, December 1, 2019

অবশেষে বিভাগীয় প্রকৌশলী ও ডিসির নির্দেশে ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের উপরেই কাজ শুরু

রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধিঃ লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলার বেশ আলোচিত  ৯নং ভোলাকোট ইউনিয়নের নাগমুদ বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের ঝরাজীর্ণ ও ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের ছাদে কোটি টাকার অধিক ব্যায়ে সম্প্রসারনের কাজ চলায় এলাকাবাসীদের মাঝে দেখা দিয়েছে চরম ক্ষোভ। শিক্ষার্থীদের অভিভাবকসহ স্থানীয় লোকজন বর্তমান ঝরাজীর্ণ ভবন ধ্বসের আশঙ্কায় হতাশাও  প্রকাশ করেছেন।
অবশেষে চট্টগ্রাম বিভাগীয় প্রকৌশলী, লক্ষ্মীপুর জেলা প্রকৌশলী,জেলা ডিসি, এসপি ও রামগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশে পুনরায় আবারো জরাজীর্ণ ও ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের ছাদেই নতুন ভবনের নির্মাণের কাজ শুরু হয়।

শিক্ষার্থীদের অভিভাবকগণ বলছেন, বার বার স্থানীয় লোকজনসহ অভিভাবকগণ সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষকে বলার পরও তারা সম্প্রসারনের কাজ পুনরায় আরম্ভ করেন।আগামী ৫ থেকে ১০ বছর পরে যদি কোন ধরনের দুর্ঘটনার শিকার হয় তাহলে এর দায়ী কে নিবে বলে এমন মন্তব্য করছেন এলাকাবাসী ও অভিভাবকগণ।

স্থানীয় ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ বলছেন, প্রথমে ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের উপর নতুন ভবনের কাজ শুরু হলো তখন আমরা স্থানীয় ছাত্রলীগ এর প্রতিবাদ করেছি। কিন্তু যখন বিভাগীয় প্রকৌশলী এবং লক্ষ্মীপুর জেলা প্রকৌশলী পরীক্ষা নিরিক্ষা করার পর দেখেছে ঝুঁকিপূর্ণের কোন আশংকা নেই।ঠিক তখন আমরা বিষয়টা বুজতে পেরেছি। 

স্কুলের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সালাম জানান, আমি এই প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ পাওয়ার পর দক্ষিণ পাশে দোতলা একটি নতুন ভবন নির্মাণ হয়েছে। তার পরেও আমাদের পুরো আঞ্জাম দিতে হিমসিম খেতে হয়।এখানে পুরনো যে ভবনটি রয়েছে সেটিও করা হয়েছে বেশিদিন হয়নি,ঝুঁকিপূর্ণ দেখা গেলেও ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ নয়।আমাদেরকে বিভাগীয় প্রকৌশলী, জেলা প্রকৌশলী এমনটাই জানিয়েছেন। আর সকলের অনুমতি সাপেক্ষেই পুনরায় কাজ আরম্ভ হয়।

রামগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আনোয়ার হোসেন জানান,বিষয়টি খুবই স্পর্শ কাতর এবং দুঃখজনক। পুনরায় ভবন নির্মাণের কাজের বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবহিত করা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুনতাসির জাহান জানান,ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের উপর অন্য একটি ভবন নির্মাণ হবে এটা তো খুবই দুঃখজনক।ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের উপর নতুন ভবন নির্মাণ করা ঠিক হবে কিনা এনিকে লক্ষ্মীপুর জেলা ডিসি মহোদয়ের নিকট চিঠি প্রেরণ করা হয়েছে।সেখানে ইঞ্জিনিয়ারগণ বলেছেন যে এটি ঝুঁকিপূর্ণ নয় এবং নীচের ভবনটি ঋতু ফাইন করা হবে তাহলে ভবনের মেয়াদ আরো উত্তীর্ণ হবে এবং ঝুঁকিপূর্ণতা কমে যাবে।তাদের আলোচনার ভিত্তিতে ডিসি মহোদয়ের নির্দেশে পুনরায় অনুমতি দেওয়া হয়।

No comments:

Post a Comment

Pages