রামগঞ্জে ছাত্রলীগের সম্মেলন ও কমিটি নিয়ে ধোঁয়াশা - amarkhobor24.com

শিরোনাম

Home Top Ad


Monday, November 18, 2019

রামগঞ্জে ছাত্রলীগের সম্মেলন ও কমিটি নিয়ে ধোঁয়াশা

রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধিঃ নির্ধারিত তারিখে সম্মেলন না হওয়ায় ও ধপায় ধপায় তারিখ পরিবর্তন করায় অনেকটা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সম্মেলন। এ নিয়ে নেতাকর্মীদের মাঝে হতাশা ও ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, রামগঞ্জ উপজেলা, পৌরসভা ও সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের বর্তমান কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ন হওয়ায় গত ০৭ নভেম্বর সম্মেলনের তারিখ নির্ধারন করে উপজেলা ছাত্রলীগকে সম্মেলনের আয়োজন করতে বলে জেলা ছাত্রলীগ। গত ০৩ অক্টোবর জেলা সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক স্বাক্ষরিত  এ সংক্রান্ত একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। কিন্তু ০৭ নভেম্বর সম্মেলনের আয়োজন করেনি উপজেলা ছাত্রলীগ। এরপর কয়েক ধপায় মৌখিক সম্ভাব্য তারিখ পরিবর্তন করায় আধৌ সম্মেলন হবে কিনা আশংকা প্রকাশ করেছেন ছাত্রলীগের স্থানীয় নেতাকর্মীরা। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ছাত্রলীগের একাধিক প্রার্থী জানান, কোন কোন ইউনিয়নে এত বছরেও কমিটি দিতে পারেনি উপজেলা ছাত্রলীগ। সম্মেলনকে সামনে রেখে কমিটি নেই এমন ইউনিয়নে কমিটি দিচ্ছে তারা। মূলত বর্তমান সভাপতি ফয়সাল মালকে পূনরায় স্বপদে বহাল রাখতেই একটি মহল প্রভাব খাটিয়ে বার বার সম্মেলনের তারিখে পেছাচ্ছে।

উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি ফয়সাল মাল বলেন, ভাই (এমপি) সময় দিতে না পারায় নির্ধারিত তারিখে সম্মেলন করা সম্ভব হয়নি। আনোয়ার ভাই যখন সময় দিবে তখনি সম্মেলন হবে। 

লক্ষ্মীপুর জেলা ছাত্রলীগ সাধারন সম্পাদক জিয়াউল কবির নিশান বলেন, ০৭ নভেম্বর সম্মেলন হবার কথা থাকলেও স্থানীয় এমপির আপত্তি থাকায় সম্মেলন হয়নি। আমরা স্থানীয় এমপি, উপজেলা আওয়ামীলীগ ও স্থানীয় সাবেক ছাত্রনেতাদের সমন্বয়ে রামগঞ্জে ছাত্রলীগের সম্মেলন করতে চাই। কিন্তু স্থানীয় এমপি আর উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি ব্যক্তিগত কারনে সময় দিতে না পারায় সম্মেলন কিছুটা পিছাচ্ছে। তবে খুব শীগ্রই সকলের সাথে আলোচনা করে সম্মেলনের তারিখ পূনঃনির্ধারন করা হবে। 

জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি সাহাদাত হোসেন শরীফ বলেন, রামগঞ্জে আওয়ামীলীগ কয়েক ভাগেই বিভক্ত। ছাত্রীগের সম্মেলনের আয়োজনে সহযোগিতা না করে স্থানীয় এমপি, উপজেলা আওয়ামীলীগ এর সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক সহ সাবেক ছাত্র নেতারা তাদের নিজ নিজ পছন্দের প্রার্থী নিয়েই ব্যস্ত। সম্মেলনের পরেই কমিটি হবে কিন্তু তারা সম্মেলনের আগেই পছন্দের প্রার্থীদের নির্বাচিত নিশ্চিত করতে ব্যস্ত থাকায় রামগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সম্মেলন পিছিয়ে যাচ্ছে। তবে শীঘ্রই নতুন তারিখ ঘোষনা করা হবে। সে তারিখেও যদি উপজেলা ছাত্রলীগ সম্মেলনের আয়োজন করতে না পারে তাহলে আমরা রামগঞ্জ উপজেলা, পৌরসভা, সরকারি কলেজ কমিটি ভেঙ্গে দিয়ে নতুন কমিটি দিতে  প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবো। 

উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারন সম্পাদক আকম রুহুল আমিন বলেন, আমার পছন্দের কোন প্রার্থী নেই। তবে আশা করি ভালো ছাত্ররাই কমিটিতে স্থান পাবে। 
উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শফিক মাহামুদ পিন্টু তার নিজস্ব কোন প্রার্থী নেই দাবী করে বলেন, ছাত্রলীগের সম্মেলনের আয়োজন করবে উপজেলা ছাত্রলীগ। সম্মেলনের তারিখ ঠিক করে আমাকে অতিথি করলে আমি অবশ্যই উপস্থিত থেকে ছাত্রলীগকে সহযোগিতা করব। 

এব্যাপারে জানতে চাইলে স্থানীয় সাংসদ ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি আনোয়ার হোসেন খান এমপি কোন প্রশ্নের জবাব না দিয়েই পাল্টা প্রশ্ন ছুড়ে দিয়ে বলেন, এসব বাদ দেন। ওরা (উপজেলা ছাত্রলীগ) কাজ করতেছে করতে দেন। আমি ছাড়া রামগঞ্জে আছে কেউ?

No comments:

Post a Comment

Pages