খুলনা বিভাগীয় ট্র্রাক শ্রমিকদের অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি - amarkhobor24.com

শিরোনাম

Home Top Ad


Saturday, November 16, 2019

খুলনা বিভাগীয় ট্র্রাক শ্রমিকদের অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি

শেখ নাসির উদ্দিন, খুলনা প্রতিনিধিঃ  নতুন সড়ক আইনের কয়েকটি ধারা সংশোধনের দাবীতে খুলনা বিভাগীয় ট্রাক শ্রমিকরা আজ শনিবার থেকে অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি পালন করছে। পুর্ব ঘোষনা দিয়ে শনিবার ভোর থেকে ফাঁসিতে ঝুলবো না রাজপথে নামবো না স্লোগান দিয়ে কর্মবিরতি শুরু করে ট্রাক মালিক-শ্রমিকরা। শ্রমিকদের দাবীর প্রতিএকত্বতা প্রকাশ করেছে খুলনা বিভাগীয় ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়ন(রেজি নং ৬২২)। সৃষ্ট সমস্যায় যে কোন ধরনের অরাজকতা রোধে ট্রাক শ্রমিকদের সাথে বৈঠক করেছে আইন শৃংখলা বাহিনী।

নতুন সড়ক আইনে চালকদের ফাঁসির দন্ড, ৫লক্ষ টাকা জরিমানা, পার্কিং ব্যবস্থায় জরিমানা, হাইওয়ে পুলিশের হয়রানি সহ কয়েকটি ধারা সংশোধনের দাবীতে পুর্ব ঘোষনা দিয়ে শনিবার ভোর ৬টা থেকে অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি শুরু করেছে খুলনা বিভাগীয় ট্রাক শ্রমিকরা। কর্মবিরতি ফলের সকল রুডে পণ্যবাহী ট্রাক চলাচল বন্ধ রেখেছে।

কর্মবিরতির প্রথম দিনে শনিবার সকালে মানিকতলা-রেলিগেট এলাকার ট্রাক শ্রমিকরা একত্রিত্ব হয়ে রেলিগেটে মহাসড়কের পাশে অবস্থান নিয়ে নতুন এই আইনের কয়েকটি ধারা সংশোধনের দাবীতে প্রতিবাদ জানান। এ সময় তারা ফাঁসিতে ঝুলবোনা রাস্তায় নামবো স্লোগান দিয়ে দেশের সড়কের এবং পারিপার্শিক অবস্থা বিবেচনা করে অবিলম্বে সড়ক আইনের কয়েকটি ধারা বাতিলের দাবী জানান। শ্রমিকরা বলেন অবিলম্বে তাদের দাবী মেনে নেওয়া না হলে অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতির সাথে কঠোর আন্দোলন কর্মসুচি ঘোষনা করা হবে। ট্রাক চালক সাদ্দাম হোসেন বলেন, নতুন সড়ক আইনের প্রতি আমরা শ্রদ্ধাশীল কিন্তু দেশের রাস্তাঘাটের দূরাবস্থা, পার্কিং এর কোন ব্যবস্থা না করে বিরাজমান অবস্থার মধ্যে নতুন আইনের ধোয়া তুলে কতিপয় অসাধু কর্মকর্তার ঘুষ বানিজ্য আর চাঁদাবাজীর সুযোগ করে দেওয়া হলো।

এদিকে রেলিগেটে ট্রাক শ্রমিকরা ট্রাক বন্ধ করে কর্মবিরতি শুরু করে একত্রিত্ব হওয়ার খবরে কেএমপির ট্রাফিকের এডিসি মো. কামরুল ইসলাম এবং দৌলতপুর থানার অফিসার্স ইনচার্জ কাজী মোস্তাক আহম্মেদ ট্রাক শ্রমিকদের সাথে খুলনা বিভাগীয় ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নের রেলিগেট কার্যালয়ে বৈঠক করেন। বৈঠকে উপস্থিত খুলনা বিভাগীয় ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়ন(৬২২)এর অন্তরভুক্তরেলীগেটজয়েন্ট ট্রান্সপোটের সম্পাদক মো. আবুল কালাম আজাদ বলেন শ্রমিকদের দাবীর প্রতি আমরা একমত পোষন করছি একই সাথে অবিলম্বে আইনের বেশ কিছু ধারা সংশোধনের জোর দাবী জানাচ্ছি। তিনি বলেন ট্রাক মালিক-শ্রমিক এবং নেতৃবৃন্দ কর্মবিরতি পালনকারী শ্রমিকদের দাবীর বিষয়ে একমত। তাদের দাবী মেনে নেওয়া না হলে কেন্দ্রীয় কর্মসুচি দিলে তা সর্বাত্ত্বক ভাবে পালন করা হবে।
দৌলতপুর থানার অফিসার্স ইনচার্জ কাজী মোস্তাক আহম্মেদ বলেন, সড়কে যাতে কেহ কোন অরাজকতা সৃষ্টি করতে না পারে সে জন্য ট্রাক শ্রমিক এবং তাদের নেতাদের সাথে কথা হয়েছে। যেহেতু কেন্দ্রী কোন কর্মসুচি নাই সেহেতু সকলকে আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে আইন মেয়ে কর্মে ফিরে যাওয়ার আহবান জানান হয়েছে। তিনি আরো জানান নতুন এই আইনে এই অঞ্চলের চালকরা যাতে কোন হয়রানির স্বিকার না হয় সে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে খুলনা ট্রাফিকের এডিসি মো. কামরুল ইসলাম।

No comments:

Post a Comment

Pages