অসময় যমুনায় ভাঙ্গন বিলীন হচ্ছে চৌহালীর ৩টি গ্রাম - amarkhobor24.com

শিরোনাম

Home Top Ad


Wednesday, November 13, 2019

অসময় যমুনায় ভাঙ্গন বিলীন হচ্ছে চৌহালীর ৩টি গ্রাম

মোঃ ইমরান হোসেন (আপন)
অসময় ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার বাঘুটিয়া ইউনিয়নের ঘুশুরিয়া হিজুলিয়া ও খাষপুকুরিয়ার ইউনিয়নের কাঁঠালিয়া চরে।  অসময়ের ভাঙ্গনে বিলীন হচ্ছে ফসলি জমি, হুমকির মুখে দুটি প্রাথমিকবিদ্যালয় ও তিনটি মসজিদ, ঘুশুরিয়া সঃ প্রাঃ বিঃ হিজুলিয়া সঃ প্রাঃ বিঃ হিজুলিয়া জামে মসজিদ ঘুশুরিয়া বাজার জামে মসজিদ ও ঘুশুরিয়া মোল্লা পাড়া জামে মসজিদ।  তা ছাড়াও বিলীন হয়েছে ঘুশুরিয়া বাজার ও নৌ ঘাট।  এখনো ভাঙ্গন রোধে  কর্র্তৃপক্ষ তাৎক্ষণিক কোন ব্যবস্থা নেয়নি।
দুই সাপ্তাহে নদী ভাঙ্গনে নদীর গর্ভে চলে গেছে চিনাবাদাম,মাসকলাই, মরস,সরিষা। বুধবার সরজমিনে গিয়ে দেখা যায় কৃষক ইতি উল্লাহ আব্বাস আলী বাদাম মাসকলাই নয় নিজের ভাগ্যকে হাত দিয়ে টেনে তুলছে এই মধ্যে বয়সি এই কৃষক। কার্তিকমাসের এই শীতেও ঘামে মুখটি ছলছল করছে ৫বছর আগে আশ্রয় নিয়েছেন এই চরে, ৪ বার নদী ভাঙ্গনের কবলে পড়েছে চরবাসি এক সময় পৈতৃক বসতবাড়ি আর কিছু জমি থাকলেও এখন প্রয় লোকেই নিঃস্ব  তাদের ভাগ্যকে যেন গ্রাস করেছে যমুনা ।  ঘুশুরিয়া বাজারের সভাপতি মোল্লা টেডার্সের মালিক মোঃ সেলিম মোল্লা জানান শুষ্ক মৌসুমে যমুনা নদীর এমন ভাঙ্গন এলাকাবাসী আগে কখনও দেখেনি। দুর্গত মানুষের আহাজারি পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তা এবং সরকারী দফতরে পৌঁছে না। কর্তৃপক্ষ ধরেই নিয়েছে, বর্ষা মৌসুম ছাড়া অন্য সময় নদী ভাঙ্গে না। ঘুশুরিয়া চরের মোহাম্মদ আলী,বলো রাম,হিজুলিয়া চরের আশরাফ মেম্বার ও কাঁঠালিয়া চরের আবুল কাসেম মেম্বার ও সাইফুল ইসলাম জানান ভাঙ্গন রোধে  ব্যবস্থা না নেওয়ার কারণে কৃষকরা দিন দিন নিঃস্ব হবে।
তারা আক্ষেপ করে জানন, এই চরে আশ্রিত এমন অনেক পরিবার রয়েছে, যারা এক সময় বিঘা বিঘা জমির মালিক ছিল। অথচ এখন তারা অন্যের জমিতে মজুরি খেটে সংসার চালাচ্ছে। টাকার অভাবে সন্তানদের স্কুলে পাঠাতে পারছে না। প্রতিবছর  ফসলি জমি আর জনপদ গ্রাস করবে যমুনা। ভাঙ্গন রোধের নামে একশ্রেণীর ঠিকাদার আর কিছু অসাধু পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তা-কর্মচারী বিস্তর টাকার মালিক হবে। তবে আমার মতো ভাঙ্গনকবলিত নিঃস্ব মানুষের হাহাকার থেকেই যাবে।বাঘুটিয়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আব্দুল কাহ্হার সিদ্দিকী জানান  নদী শুকিয়ে ছোট বড় চরের সৃষ্টি হয়ছে ও অপরিকল্পিত ভাবে ড্রিজার দিয়ে বালু উত্তলনের কানরেই অসময়ে নদী ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে।

No comments:

Post a Comment

Pages